কথা না শুনলে চলে যাবেন জিদান

নতুন মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদ দলটা কেমন হবে? এডেন হ্যাজার্ড কি আসছেন রিয়ালে? গোলবারে কে থাকবেন, কোর্তোয়া না নাভাস? এত বড় রদবদলের কার সিদ্ধান্ত বেশি গুরুত্ব পাবে? অনেক অনেক প্রশ্ন জমে আছে সাংবাদিকদের মনে। সব প্রশ্নের উত্তর এক সংবাদ সম্মেলনেই দিয়ে দিয়েছেন জিনেদিন জিদান।

ভয়াবহ এক মৌসুম কাটিয়েছে রিয়াল। এ মৌসুমে কিছুই আর পাওয়ার নেই। বরং আগামী মৌসুমে দল কীভাবে সাজানো হবে, এ নিয়েই আগ্রহ সবার। হ্যাজার্ড, পগবা, নেইমার—কত কত নাম যে প্রতিদিন শোনা যাচ্ছে! এ মৌসুম শেষ হওয়ার আগেই পরের মৌসুম নিয়ে আলোচনায় বিরক্ত হয়ে উঠেছেন জিদান। রিয়াল বেতিসের সঙ্গে লিগের শেষ ম্যাচে আগেও তাকে পরের মৌসুম নিয়ে প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে।

হ্যাজার্ড, নেইমার কিংবা পগবাদের নিয়ে কথা আর বলতে রাজি নন জিদান। কিন্তু গোলবারের প্রশ্নের উত্তর তাঁকে দিতেই হচ্ছে। কারণ, কোর্তোয়া ও নাভাসের প্রশ্নের উত্তর আগামী মৌসুমে দিতেই হবে রিয়ালকে। এর মধ্যেই জোর গুঞ্জন উঠেছে আগামী মৌসুমে নাভাসকে বিক্রি করে দেবে রিয়াল। ফলে আগামীকালের ম্যাচটিই হবে রিয়ালের জার্সিতে নাভাসের শেষ ম্যাচ। জিদান আজ স্বীকার করেছেন এ ব্যাপারে নাভাসের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছে। তবে কী কথা হয়েছে বা কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হলো সেটা জানাতে রাজি হননি জিদান, ‘এটা কি কেইলর নাভাসের শেষ ম্যাচ? আমার মনে হয় না, আমি আগামী মৌসুম নিয়ে ভাবতেও রাজি না। এখন অনেক গুঞ্জনই শোনা যাচ্ছে কী হতে পারে কিন্তু এ নিয়ে আমি কিছু বলতে রাজি নই। আমি কেইলরকে কী বলেছি সেটা আমরা দুজন ছাড়া আর কেউ জানে না।’

পরের মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদে কাদের দেখা যাবে, সে ইঙ্গিত কিন্তু জিদান দিয়ে দিয়েছেন আজ। তাঁর ইচ্ছার প্রতি সম্মান না দেখালে কী হতে পারে সেটাও বলে দিয়েছেন জিদান, ‘যখন নতুন মৌসুম শুরু হবে তখন আমি জানব কারা খেলব। সেটা আমার সিদ্ধান্ত। আপনাদের কী ধারণা এ দলের দায়িত্বে কে আছে? এটা পানির মতো পরিষ্কার। আমি কোচ, আমি তাই করব যা আমি চেয়েছি এবং যদি সেটা না করতে পারি তবে বিদায় নেব। এটা একদম পরিষ্কার। দলবদলের বিষয় নিয়ে বললে, এখানে ক্লাবে অনেকেই আছ এবং আমরা সবাই মিলে কাজ করি। কিন্তু দল, ম্যাচের লাইন আপ, বেঞ্চে কারা থাকবে বা স্কোয়াড কেমন হবে… এটা শুধুই আমার ও আমার স্টাফদের জন্য।’

দলবদলের গুঞ্জন নিয়ে আলোচনা করতে করতে যে আসলেই কতটা বিরক্ত সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন পরের কথাতেই, ‘গ্রিজম্যান কি রিয়ালে আসবে? আমি এ নিয়ে কথা বলব না। ইয়োভিচ কি আসবে? আমি সেটা নিয়েও কথা বলব না। ইসকোর ভবিষ্যৎ কী? আমি সেটা নিয়েও কথা বলব না। কালকের ম্যাচ নিয়ে কারও কোনো প্রশ্ন আছে?’

এমন এক সংবাদ সম্মেলনের পর অন্তত একটি বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে। মৌসুমের শেষ দিকে জিদান ফেরার সময়ই শোনা গিয়েছিল, এখন থেকে সব দলবদল জিদানের অনুমতি নিয়ে করা হবে। এ নিয়ে এত দিন ক্লাবের কেউ সরাসরি কিছু বলেননি। এবার জিদান নিজেই সেটা স্বীকার করে ফেললেন। সে ক্ষেত্রে হ্যাজার্ড ও পগবার দলবদলের গুঞ্জন কিন্তু আরও জোরদার হলো। আর নেইমারের গুঞ্জন আপাতত কিছুদিনের জন্য আড়ালে চলে যাওয়ারই কথা!

 

সূত্রঃ প্রথম আলো

1,297 Replies to “কথা না শুনলে চলে যাবেন জিদান”